Breaking News

এপ্রিলেই তীব্র কালবৈশাখী-ঘূর্ণিঝড়ের আভাস

এপ্রিলেই তীব্র কালবৈশাখী-ঘূর্ণিঝড়ের আভাস সারাদেশে থেমে থেমে ঝড় বৃষ্টির পাশাপাশি কয়েকটি জেলায় মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে দেশের আবহাওয়া নিয়ে আরও দুঃসংবাদ দিলো সংস্থাটি। আবহাওয়া অফিস বলছে, চলতি মাসে বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

এ ছাড়া মাঝারি থেকে তীব্র কালবৈশাখী, নিম্নচাপ থেকে ঘূর্ণিঝড় ও অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে ‍যেতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দিতে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি এ পূর্বাভাস দিয়েছে। সোমবার (১ এপ্রিল) আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঢাকার ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে ও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কমিটির নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. ছাদেকুল আলম এতে সভাপতিত্ব করেন। সংস্থাটি জানায়, মার্চ ২০২৪ মাসে সার্বিকভাবে সারাদেশে স্বাভাবিক (-০৮%) বৃষ্টিপাত হয়েছে।

তবে ঢাকা, ময়মনসিংহ ও রংপুর বিভাগে স্বাভাবিক অপেক্ষা বেশি, চট্টগ্রাম, রাজশাহী খুলনা ও বরিশাল বিভাগে স্বাভাবিক অপেক্ষা কম এবং সিলেট বিভাগে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হয়েছে। পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পুবালি বায়ুপ্রবাহের সংযোগ ঘটায় ২-৩, ১৪-১৬ ও ১৮-৩১ মার্চ ২০২৪ সময়ে দেশের অনেক স্থানে হালকা থেকে ভারী বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়, সেই সঙ্গে বজ্রপাত ও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টিসহ হালকা অথবা মাঝারি ধরনের কালবৈশাখী বয়ে যায়।

এ সময় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত সিলেটে ৮৯ মি.মি. রেকর্ড (৩১ মার্চ ২০২৪) করা হয়। এ সময় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রাজশাহীতে (৩১ মার্চ ২০২৪) ৩৭.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা যথাক্রমে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম ছিল এবং গড় তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম ছিল।

তাপপ্রবাহ এবং কৃষি আবহাওয়া মার্চ ২০২০ মাসের পূর্বাভাসের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ছিল। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, এপ্রিল ২০২৪ মাসে দেশে স্বাভাবিক অপেক্ষা কম বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এ মাসে দেশে ৫ থেকে ৭ দিন বিক্ষিপ্তভাবে শিলাসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টিসহ হালকা মাঝারি ধরনের এবং ১ থেকে ৩ দিন তীব্র কালবৈশাখী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ মাসে বঙ্গোপসাগরে ১ থেকে ২টি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে যার মধ্যে ১টি নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এ ছাড়া এপ্রিল মাসে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও তৎসংলগ্ন উজানে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের পরিপ্রেক্ষিতে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের নদ-নদীর পানি সময়বিশেষ দ্রুত বাড়তে পারে।

এতে স্বল্পমেয়াদি আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে। তবে অন্যত্র, দেশের সব প্রধান নদ-নদীতে স্বাভাবিক প্রবাহ থাকতে পারে বলে দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস প্রতিবেদনে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

Check Also

গরম নিয়ে দুঃসংবাদ দিলো আবহাওয়া অফিস

কয়েক দিনের টানা গরমের দেশের বিভিন্ন স্থানে কালবৈশাখী ঝড় ও বজ্রবৃষ্টি হওয়ায় আবহাওয়া কিছুটা শীতল …